অক্টো. 112013
 

হযরত আদম (রঃ) হযরত আবূল বাখতারী তাঈ (রঃ) থেকে বর্নিত, আমি ইবন আব্বাস (রাঃ) কে খেজুরে সলম করা সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করলাম। তিনি বললেন, রাসূল (সাঃ) খেজুর খাবারযোগ্য এবং ওযন করার যোগ্য হওয়ার আগে বিক্রি করা নিষেধ করেছেন। ঐ সময়ে এক ব্যাক্তি বলল, কী ওযন করবে? তার পাশের ব্যাক্তি বলল, সংরক্ষিত হওয়া পর্যন্ত। হযরত মুআয (রঃ) সূত্রে হযরত শুবা (রঃ) থেকে হযরত আমর (রঃ) থেকে বর্নিত, আবূল বাখতারী (রঃ) বলেছেন, ইবন আব্বাস (রাঃ)-কে বলতে শুনেছি যে, রাসূল (সাঃ) এরুপ (করতে) নিষেধ করেছেন।

সহীহ বুখারি অধ্যায়ঃ সলম হাদিস নাম্বারঃ ২১০৬

অক্টো. 112013
 

হযরত কুতায়বা (রঃ) হযরত শায়বানী (রঃ) থেকে বর্নিত যে, রাবী বলেন, গম, যব ও কিসমিসে (সলম করতেন)। আবদুল্লাহ ইবনুল ওয়ালীদ (রঃ) সুফিয়ান (রঃ) সূত্রে শায়বানী (রঃ) এর বর্ননায় রয়েছে এবং যায়তুনে।

সহীহ বুখারি অধ্যায়ঃ সলম হাদিস নাম্বারঃ ২১০৫

অক্টো. 112013
 

হযরত ইসহাক ওয়াসিতী (রঃ) হযরত মুহাম্মাদ ইবন আবূ মুজালিদ (রঃ) থেকে অনুরুপ বর্ননা করেছেন এবং তিনি বলেছেন, আমরা তাদের সঙ্গে গম ও যবে সলম করতাম।

সহীহ বুখারি অধ্যায়ঃ সলম হাদিস নাম্বারঃ ২১০৪

অক্টো. 112013
 

হযরত মুসা ইবন ইসমাঈল (রঃ) হযরত মুহাম্মাদ ইবন আবূ মুজালিদ (রঃ) সূত্রে বর্নিত, তিনি বলেন, আবদুল্লাহ ইবন সাদ্দাদ ও আবূ বুরদাহ (রঃ) আমাকে আবদুল্লাহ ইবন আবূ আওফা (রাঃ) এর কাছে পাঠান। তাঁরা বললেন যে, (তুমি গিয়ে) তাঁকে জিজ্ঞাসা কর, রাসূল (সাঃ) এর যুগে সাহাবায়ে কিরাম গম বিক্রয়ে কি সলম (পদ্ধতি গ্রহন) করতেন? আবদুল্লাহ (রাঃ) বললেন, আমরা সিরিয়ার লোকদের সঙ্গে গম, যব ও কিসমিস নির্দিষ্ট মাপে ও নির্দিষ্ট মেয়াদে সলম করতাম। আমি বললাম, যার কাছে এসবের মূল বস্তু থাকতো, তাঁর সঙ্গে? তিনি বললেন, আমরা এ সম্পর্কে তাদের জিজ্ঞাসা করিনি। তারপর তাঁরা দুজনে আমাকে হযরত আবদুর রহমান ইবন আবযা (রাঃ) এর কাছে পাঠালেন এবং আমি তাঁকে (এ ব্যাপারে) জিজ্ঞাসা করলাম। তিনি বললেন, রাসূল (সাঃ) এর যুগে সাহাবীগন সলম করতেন, কিন্তু তাদেরকে জিজ্ঞাসা করতেননা যে, তাদের কাছে মূল বস্তু মওজুদ আছে কি-না।

সহীহ বুখারি অধ্যায়ঃ সলম হাদিস নাম্বারঃ ২১০৩

অক্টো. 112013
 

হযরত আবূল ওয়ালীদ (রঃ), ইয়াহইয়া (রঃ) ও হাফস ইবন উমর (রঃ) হযরত মুহাম্মাদ অথবা আবদুল্লাহ ইবন আবূল মুজালিদ (রঃ) সূত্রে বর্নিত, তিনি বলেন, আবদুল্লাহ ইবন শাদ্দাদ ইবন হাদ ও আবূ বুরদাহ (রঃ) এর মাঝে সলম কেনা-বেচার ব্যাপারে মতভেদ দেখা দিলে তাঁরা আমাকে ইবন আবূ আওফা (রাঃ) এর নিকট পাঠান। আমি এ বিষয়ে তাঁকে জিজ্ঞাসা করলে তিনি বলেন, রাসূল (সাঃ) , আবূ বকর ও উমর (রাঃ) এর ‍যুগে আমরা গম, যব, কিসমিস ও খেজুরে সলম করতাম। (তিনি আরো বলেন) এবং আমি ইবন আবযা (রাঃ) কে জিজ্ঞাসা করলে তিনিও অনুরুপ বলেন।

সহীহ বুখারি অধ্যায়ঃ সলম হাদিস নাম্বারঃ ২১০২

অক্টো. 112013
 

হযরত কুতায়বা (রঃ) হযরত ইবন আব্বাস (রাঃ) সূত্রে বর্নিত, রাসূল (সাঃ) যখন মদীনায় আসেন এবং বলেন, নির্দিষ্ট মাপে, নির্দিষ্ট ওযনে ও নির্দিষ্ট মেয়াদে (সলম) কর।

সহীহ বুখারি অধ্যায়ঃ সলম হাদিস নাম্বারঃ ২১০১

অক্টো. 112013
 

হযরত আলী ইবন আবদুল্লাহ (রঃ) হযরত ইবন আবূ নাজীহ্ (রঃ) সূত্রে বর্নিত, রাসূল (সাঃ) বলেছেন, সে যেন নির্দিষ্ট মাপে এবং নির্দিষ্ট মেয়াদে সলম করে।

সহীহ বুখারি অধ্যায়ঃ সলম হাদিস নাম্বারঃ ২১০০

অক্টো. 112013
 

হযরত সাদাকা (রঃ) হযরত ইবন আব্বাস (রাঃ) সূত্রে বর্নিত, রাসূল (সাঃ) যখন মদীনায় আসেন, তখন মদীনাবাসীরা ফলে দুই ও তিন বছরের মেয়াদে সলম করত। রাসূল (সাঃ) বললেন, কোন ব্যাক্তি সলম করলে সে যেন নির্দিষ্ট মাপে, নির্দিষ্ট ওযনে এবং নির্দিষ্ট মেয়াদে সলম করে।

সহীহ বুখারি অধ্যায়ঃ সলম হাদিস নাম্বারঃ ২০৯৯

অক্টো. 112013
 

হযরত মুহাম্মাদ (রঃ) হযরত ইবন আবূ নাজীহ (রঃ) থেকে নির্দিষ্ট মাপে এবং নির্দিষ্ট ওজনে (সলম করার কথা) বর্নিত রয়েছে।

সহীহ বুখারি অধ্যায়ঃ সলম হাদিস নাম্বারঃ ২০৯৮

অক্টো. 112013
 

হযরত আমর ইবন যুরারা (রঃ) হযরত ইবন আব্বাস (রাঃ) সূত্রে বর্নিত, রাসূল (সাঃ) যখন মদীনায় আগমন করেন তখন লোকেরা এক বা দুই বছরের বাকীতে (রাবী ইসমাঈল সন্দেহ করে বলেন, দুই বা তিন বছরের মেয়াদে) খেজুর (সলম পদ্ধতিতে) বেচা-কেনা করত। এতে তিনি বললেন, যে ব্যাক্তি খেজুরে সলম করতে চায়, সে যেন নির্দিষ্ট মাপে এবং নির্দিষ্ট ওযনে সলম করে।

অগ্রীম মূল্যে কেনা-বেচাকে সলম বলে।

সহীহ বুখারি অধ্যায়ঃ সলম হাদিস নাম্বারঃ ২০৯৭