নভে. 132013
 

হযরত আলী ইবনু আবদুল্লাহ (রহঃ) হযরত আবূ হুরায়রা দাওসী (রাঃ) সূত্রে বর্নিত, রাসূল (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) দিনের এক অংশে বের হলেন, তিনি আমার সঙ্গে কথা বলেননি এবং আমিও তাঁর সঙ্গে কথা বলিনি। অবশেষে তিনি বানু কায়নুকা বাজারে এলেন। (সেখান থেকে ফিরে এসে) হযরত ফাতিমা (রাঃ) এর ঘরের আঙিনায় বসে বললেন, এখানে খোকা [হাসান (রাঃ)] আছে কি? এখানে খোকা আছে কি? হযরত ফাতিমা (রাঃ) তাঁকে কিছুক্ষন দেরী করালেন। আমার ধারনা হল, তিনি তাঁকে পুতির মালা সোনা-ওরুপার ছাড়া, যা বাচ্চাদের পরানো হতো, পরাচ্ছিলেন বা তাকে গোসল করালেন। তারপর তিনি দৌড়িয়ে এসে তাঁকে জড়িয়ে ধরলেন এবং চুমু খেলেন। তখন তিনি বললেন, আয় মহান আল্লাহ্ তা’আলা, তুমি তাঁকে (হাসানকে) মহব্বত কর এবং তাঁকে যে ভালবাসবে তাকেও মহব্বত কর। সুফিয়ান (রহঃ) বলেন, আমার কাছে উবায়দুল্লাহ বর্ননা করেছেন যে, তিনি নাফি ইবনু জুবায়রকে এক রাকাত মিলিয়ে বিতর আদায় করতে দেখেছেন।

গ্রন্থঃ সহীহ বুখারি অধ্যায়ঃ ক্রয় – বিক্রয় হাদিস নাম্বারঃ ১৯৯০

নভে. 122013
 

ইসহাক (রহঃ) আবূ হুরায়রা (রাঃ) থেকে বর্নিত। রাসুলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) বলেছেনঃ আল্লাহ যখন কোন বান্দাকে ভালবাসেন, তখন তিনি জিবরাঈলকে ডেকে বলেন, আল্লাহ অমুক বান্দাকে ভালবাসেন, তাই তুমিও তাকে ভালবাস। সূতরাং জিবরাঈল (আঃ) তাকে ভালবাসেন। তারপর জিবরাঈল (আঃ) আসমানে এ ঘোষণা করে দেন যে, আল্লাহ অমুক বান্দাকে ভালবাসেন, তোমরাও তাকে ভালবাসা তখন তাকে আসমানবাসীরা ভালবাসে এবং যমীনবাসীদের মাঝেও তাকে মকবুল করা হয়।

গ্রন্থঃ সহীহ বুখারি অধ্যায়ঃ তাওহীদ প্রসঙ্গ হাদিস নাম্বারঃ ৬৯৭৭

নভে. 102013
 

উসমান ইবন আবূ শায়বা (রহঃ) আনাস ইবন মালিক (রহঃ) থেকে বর্নিত। তিনি বলেনঃ একবার আমি ও নাবী (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) উভয়ে মসজিদ থেকে বের হচ্ছিলাম। এমন সময় একজন লোক মসজিদের আঙ্গিনায় আমাদের সাথে সাক্ষাত করে বলল, ইয়া রাসুলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম)! কিয়ামত কখন হবে? নাবী (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) বললেনঃ তুমি তার জন্য কি প্রভুত্ব গ্রহণ করেছ? এতে লোকটি যেন কিছুটা লজ্জিত হল। তারপর বলল, ইয়া রাসুলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম)! রোযা। সালাত (নামায), সাদাকা খুব একটা তার জন্য করতে পারিনি। তবে আমি আল্লাহ ও তার রাসুলকে ভালবাসি। তিনি বললেনঃ তুমি যাকে ভালবাস (কিয়ামতে) তার সাথেই থাকবে।

সহীহ বুখারি অধ্যায়ঃ আহকাম হাদিস নাম্বারঃ ৬৬৬৮

নভে. 052013
 

আবদান (রহঃ) আনাস ইবন মালিক (রাঃ) থেকে বর্ণিত। এক ব্যাক্তি নাবী (সাঃ) কে জিজ্ঞাসা করল: ইয়া রাসুলুল্লাহ (সাঃ)! কিয়ামত কবে হবে? তিনি তাকে জিজ্ঞাসা করলেন: তুমি এর জন্য কি যোগাড় করেছ? সে বলল: আমি এর জন্য তো বেশী কিছু সালাত (নামায), সাওম (রোযা) ও সাদাকা আদায় করতে পারি নি। কিন্তু আমি আল্লাহ ও তার রাসুলকে ভালবাসি। তিনি বললেনঃ তুমি যাকে ভালবাস তারই সঙ্গী হবে।

সহীহ বুখারি অধ্যায়ঃ আচার ব্যবহার হাদিস নাম্বারঃ ৫৭৪০

নভে. 052013
 

আবূ নুয়াইম (রহঃ) আবূ মুসা (রাঃ) থেকে বর্নিত। তিনি বলেনঃ নাবী (সাঃ) কে জিজ্ঞাসা করা হলো: কোন ব্যাক্তি একদলকে ভালবাসে কিন্তু (আমলে ) তাদের সমকক্ষ হতে পারেনি। তিনি বললেনঃ মানুষ যাকে ভালবাসে, সে তারই সঙ্গী হবে।

সহীহ বুখারি অধ্যায়ঃ আচার ব্যবহার হাদিস নাম্বারঃ ৫৭৩৯

নভে. 052013
 

কুতায়বা ইবন সাঈদ (রহঃ) আব্দুলাহ ইবন মাসউদ (রাঃ) বলেছেনঃ এক ব্যাক্তি রাসুলুল্লাহ (সাঃ) -এর নিকট এসে জিজ্ঞাসা করল: ইয়া রাসুলাল্লাহ! এমন ব্যাক্তি সম্পর্কে আপনি কি বলেন, যে ব্যাক্তি কোন দলকে ভালবাসে, কিন্তু (আমলের দিক দিয়ে) তাদের সমান হতে পারে নি। তিনি বললেনঃ মানুষ যাকে ভালবাসে সে তারই সঙ্গী হবে।

সহীহ বুখারি অধ্যায়ঃ আচার ব্যবহার হাদিস নাম্বারঃ ৫৭৩৮

নভে. 052013
 

বিশর ইবন খালিদ (রহঃ) আব্দুল্লাহ (রাঃ) থেকে বর্ণিত। নাবী (সাঃ) বলেছেনঃ মানুষ (দুনিয়াতে) যাকে ভালবাসবে (বলছিলেনঃ) সে তারই সঙ্গী হবে।

সহীহ বুখারি অধ্যায়ঃ আচার ব্যবহার হাদিস নাম্বারঃ ৫৭৩৭

নভে. 052013
 

আমর ইবন আসিম (রহঃ) আনাস (রাঃ) থেকে বর্ণিত যে, এক গ্রাম্য লোক নাবী (সাঃ) -এর খেদমতে এসে বলল: ইয়া রাসুলুল্লাহ (সাঃ) কিয়ামত কবে সংঘটিত হবে? তিনি বললেনঃ তোমার জন্য আক্ষেপ তুমি এর জন্য কি প্রস্তুতি নিয়েছ? সে জবাব দিলঃ আমি তো তার জন্য কিছু প্রস্তুতি নেই নি, তবে আমি আল্লাহ ও তার রাসূল (সাঃ) কে ভালবাসি। তিনি বললেন: তুমি যাকে ভালবাস, কিয়ামতের দিন তুমি তার সঙ্গেই থাকবে। তখন আমরা বললাম: আমাদের জন্যও কি এরুপ? তিনি বললেনঃ হ্যা। এতে আমরা সে দিন যারপরনাই আনন্দিত হলাম। আনাস (রাঃ) বলেন এ সময় মুগীরা (রাঃ)-এর একটি যুবক ছেলে পাশ দিয়ে যাচ্ছিল। সে ছিল আমার সমবয়সী নাবী (সাঃ) বললেনঃ যদি এ যুবকটি বেশী দিন বেঁচে থাকে, তবে সে বৃদ্ধ হওয়ার আগেই কিয়ামত সংঘটিত হতে পারে।

সহীহ বুখারি অধ্যায়ঃ আচার ব্যবহার হাদিস নাম্বারঃ ৫৭৩৬

নভে. 052013
 

আমর ইবন আলী (রহঃ) আবূ হুরায়রা (রাঃ) থেকে বর্ণিত। নাবী (সাঃ) বলেছেনঃ যখন আল্লাহ তাআলা কোন বান্দাকে ভালাবাসেন, তখন তিনি জিবরাঈল (আঃ) কে ডেকে বলেন, আল্লাহ তা-আলা অমুক বান্দাকে ভালবাসেন তুমিও তাকে ভালবাসবে। তখন জিবরাঈল (আঃ) তাকে ভালবাসেন এবং তিনি আসমান বাসীদের নিকট ঘোষণা করে দেন যে, আল্লাহ তা-আলা অমুককে ভালবাসেন, অতএব তোমরাও তাকে ভালবাসবে। তখন আসমান বাসীরাও তাকে ভালবাসতে শুরু করে। তারপর আল্লাহ তা’আলার তরফ থেকে যমীন বাসীদের মধ্যে তার জনপ্রিয়তা সৃষ্টি করা হয়।

সহীহ বুখারি অধ্যায়ঃ আচার ব্যবহার হাদিস নাম্বারঃ ৫৬১৪

নভে. 052013
 

আবূ নুআয়ম (রাঃ) নুমান ইবন বশীর (রাঃ) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসুলুল্লাহ (সাঃ) বলেছেনঃ তুমি মু-মিনদের পারস্পরিক দয়া ভালবাসা ও সহানূভূতি প্রদর্শনে একটি দেহের ন্যায় দেখতে পাবে। যখন দেহের একটি অঙ্গ রোগে আক্রান্ত হয় তখন শরীরের সমস্ত অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ রাত জাগে এবং জ্বরে অংশ গ্রহণ করে।

সহীহ বুখারি অধ্যায়ঃ আচার ব্যবহার হাদিস নাম্বারঃ ৫৫৮৬